২০১৮ সালের মাঝামাঝি কোন একটা দিনে বেইলি রোডে সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম চাচার বাস ভবনের দোতলার সরু বারান্দায় তোলা এই ছবিটা!

২০১৮ সালের মাঝামাঝি কোন একটা দিনে বেইলি রোডে সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম চাচার বাস ভবনের দোতলার সরু বারান্দায় তোলা এই ছবিটা!
হয়তো এটাও একটা ছবি;যেমনটা আপনাদের দামি ফোনের বাহারি গ্যালারিতে আলস্যে পড়ে থাকা শত শত’দের মধ্যকার একটা!
আবার কখনও কখনও ছবিটাই যেন জীবন্ত হয়ে ওঠে! পরম যত্নে গভীর আরাধ্যে কেহ কেহ কিছু ছবি তার অন্ত ঘরের দেয়ালে যত্নে সাজিয়ে রাখে!
আমার কাছে এই ছবিটা আজো জীবন্ত হয়ে আছে! মানুষটার উপস্থিতি হারিয়ে গেছে যদিও তবে তার রেশটা থেকে গেছে!
দেখুনতো,কতটা নির্ভার হয়ে ক্লান্ত দুপুরে আয়েশে বসে আছে! তেমন কোনো সাজগোজ নেই,নেই ছবি হওয়ার এতোটুকু লোভ!মনে হচ্ছে ধরণীর বুকে তার কোনোরূপ দায় নেই!
অথচ,অথচ তিনিই সাজিয়ে গেছেন; এই মানুষটাই দুদুবার বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের গুরুদায়িত্ব সাফল্যের সঙ্গে সামলেছেন! দেশরত্ন শেখ হাসিনার নিতান্ত বিশ্বস্ত সহযোগী হয়ে রাষ্ট্রপরিচালনায় তাকে সহায়তা করেছেন!
তিনি সর্বদাই বিনয়ী ছিলেন তবুও কখনো কখনো সময়ের প্রয়োজনেই তাকে কঠিন হতে হয়েছিলো!
বিভিন্ন সময়ে নানা পদে ভিন্ন ভিন্ন দায়িত্ব পালন করেছেন!দায়িত্ব পালনের কল্যাণে তিনি যেন আজ অনেকের কাছে অনুসরণীয় হয়ে আছেন!
কিন্তু ভেতরে ভেতরে তিনি যে অন্য মানুষ ছিলেন! সারল্য আর বিনয় এর মধ্যে আজন্ম বেঁচে ছিলেন! তিনি কাউকে অকারণ বিশ্বাস করতেন;বিশ্বাস করতেন আওয়ামী কোন দল নয় বরং একটি অনুভুতির নাম! ভাবতেন বিনয়ের মাধ্যমে দায়িত্ব পালন করলে জনগণের একজন হয়ে উঠে যায়!
হ্যা,সত্যিই তিনি তা পেরেছিলেন! দলমতের ঊর্ধ্বে উঠে তিনি জনতার একজন হয়ে উঠেছিলেন,আর আছেন‌ও!
সবথেকে বড় কথা-প্রাচুর্য আর আভিজাত্যের লোভনীয় হাতছানি ছেড়ে তিনি টাকার চেয়েও বড় হতে পেরেছিলেন!
কথাগুলো কেন বললাম জানিনা,তবে বললাম! কারণ আগেই তো বলেছিলাম কিছু ছবি শুধু ছবি নয় কারো কাছে সর্বদাই জীবন্ত হয়ে থাকে!
ভাগ্যবান আমি তার সান্নিধ্য পেয়েছিলাম, ভেতর ঘরে তার দেখেছিলাম খানিক ভেতরকার! আজও তার শ্বাসটা কানে বাজে…কি বিনয়ী গলা,কত্ত সহজ তার মিশিয়ে কথা বলা!
কি অদ্ভুত আর চমৎকার সার্বজনীন শ্রদ্ধার একজন সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম!
আপনাকে কোটি সালাম…..!!
আপনার অনুপস্থিতি আমাকে আরো অনুপ্রেরণা দেয়!
আপনি ছিলেন, আছেন আর থাকবেন সকল আওয়ামী রক্তে জাগ্রত অনূভুতি হয়ে…. ভালো থাকবেন পরোবারে,যদি ভাগ্য হয় তবে নিশ্চয়ই মিলবো খোদার দরবারে!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *